আমাদের দেশের ধর্মব্যবসায়ী হুজুরদের মনে এত দেশপ্রেম লুকিয়ে ছিল তা কে জানত - nkbarta

nkbarta

সেবা ও সার্ভিস এক সাথে

Breaking

বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০২০

আমাদের দেশের ধর্মব্যবসায়ী হুজুরদের মনে এত দেশপ্রেম লুকিয়ে ছিল তা কে জানত



 আমাদের দেশের ধর্মব্যবসায়ী হুজুরদের মনে এত দেশপ্রেম লুকিয়ে ছিল তা কে জানত? পতাকা ছাড়া ইদানীং তাদের কোনো মিছিল খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। কারো কারো দেশপ্রেমের ভোল্টেজ এত পরিমাণে বেড়ে গেছে যে, তাদের আর পতাকা হাতে রেখে পোষাচ্ছে না, পতাকা গায়ে জড়িয়ে ধরে ভাষণ দিচ্ছেন তারা। গতকাল দেখলাম বরিশালে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য পাহারা দিচ্ছেন অনেকগুলো হুজুর। কেউ আবার হণ্যে হয়ে খুঁজে বেড়াচ্ছেন মুক্তিযুদ্ধে তাদের বাপ-দাদারা কী কী অবদান রেখেছিল সেই ইতিহাস। কার দাদা মুক্তিযোদ্ধাদের ভালো বলেছিল, সেই কথা কার দাদা শুনেছিল, কার বাপের কাছে গল্প করেছিল- সেইসব খুঁজে খুঁজে বের করে আনা হচ্ছে অমূল্য রত্নের মত করে। কে বলেছে এই দেশের হুজুরদের দেশপ্রেম নেই? আর কে-ই বা বলেছে এ দেশের হুজুররা আইন মানে না? এইসব আজগুবি কথা বন্ধ করতে হবে।

মনে রাখতে হবে- ঘুমিয়ে আছে দেশপ্রেম সব হুজুরের অন্তরে। হ্যা, এটাও ঠিক যে- হুজুরদের এই ঘুমিয়ে থাকা দেশপ্রেম কেবল তখনই জেগে ওঠে যখন তারা দেশবিরোধী কোনো কথা বলে মাইর খাওয়ার মত পজিশনে চলে যান। তো এভাবেই যদি কাজ হয়, হোক না। দেশপ্রেম জাগ্রত হওয়াটাই বড় কথা, কার দেশপ্রেম নিজ থেকে জেগেছে, আর কারটা মামলার ভয়ে জেগেছে, সেই সূক্ষ্ম বিশ্লেষণে যাওয়ার দরকারটা কী?
তবে খেয়াল রাখতে হবে দেশপ্রেম জাগ্রত করার ওষুধের ডোজ যাতে বেশি না পড়ে যায়। শেষে মাইরের ভয়ে যদি এইসব হুজুর তাদের নিজ নিজ দলের নাম পাল্টিয়ে “হুজুরলীগ” হয়ে যায়- তার জন্য কিন্তু কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad